মঙ্গলবার, ২১ মার্চ, ২০১৭

দেশের চলমান দূরাবস্থায় উলামায়ে কেরামকে নীতি ও আদর্শের প্রশ্নে আপোসহীন থাকতে হবে: মুফতী ফয়জুল করীম

ময়মনসিংহ সংবাদদাতা : ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম (সাহেবজাদা ও খলিফা, শায়েখ চরমোনাই রহ.) বলেছেন, কুরআন-সুন্নাহ থেকে দূরে সরে থাকার কারণেই মুসলমানরা সবচেয়ে লাঞ্ছনা ও বঞ্চনার শিকার। এখন যদি মুসলমানদের হারানো গৌরব ফিরে পেতে হয় তাহলে কুরআন-সুন্নাহর উপর আমল বাড়াতে হবে। সকলকে ইসলামের সুমহান আদর্শের পতাকাতলে ফিরে আসতে হবে।

তিনি বলেন, নায়েবে নবী হযরত উলামায়ে কেরামের অনৈক্যের কারণে তাগুতী ও আল্লাহদ্রোহী শক্তিগুলো আমাদের মাথার উপরে জেঁকে বসেছে। নীতি ও আদর্শ জলাঞ্জলী দিয়ে অনেকে ইসলামের বিজয় করতে চান। তাগুতের সাথে সংমিশ্রণ করে ইসলাম বিজয়ের ইতিহাস নেই। দেশের যে দূরাবস্থা চলছে তাতে উলামায়ে কেরামকে নীতি ও আদর্শের প্রশ্নে আপোসহীন থাকতে হবে। প্রচলিত আদর্শ বিবর্জিত রাজনীতির করালগ্রাস থেকে ফিরে এসে আদর্শ রাজনীতি প্রবর্তন এবং রাজনীতিতে গুণগত পরিবর্তনে হযরত উলামায়ে কেরামকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে।

তিনি বলেন, উলামায়ে কেরামকে ক্ষমতার মোহ ত্যাগ করে জাতিকে সঠিকপথে পরিচালিত করতে নেতৃত্বে এগিয়ে আসতে হবে। উলামায়ে কেরামকে জেনে-বুঝে ও অত্যন্ত সতর্কভাবে পা ফেলতে হবে।

মুফতী ফয়জুল করীম বলেন, ইসলামী বিপ্লবে সর্বশ্রেণী ও পেশার মানুষের অংশগ্রহণ প্রয়োজন। শুধুমাত্র একশ্রেণির মানুষের উপর নির্ভর থাকলে ইসলাম প্রতিষ্ঠা সুদুর পরাহত হবে।

মঙ্গলবার (২১ মার্চ) সন্ধ্যায় মোমেনশাহীর ভালুকা আঃ গনি মাস্টার আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত বিশাল ইসলামী মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।