শনিবার, ১৮ মার্চ, ২০১৭

হোলিতে মুসলিম মেয়েদেরকে জোর করে রঙ মাখিয়ে দেয়া উৎসবের নামে ধর্মীয় সন্ত্রাস: অধ্যক্ষ ইউনুছ আহমদ

আইএবি নিউজ: হিন্দুদের হোলি উৎসবে মুসলিম নারীদের চেহারায় জোর করে রঙ মাখিয়ে দেয়ার ঘটনাকে কোনভাবেই হালকা করে দেখার সুযোগ নেই বলে মন্তব্য করেছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ। তিনি বলেন, হোলি উৎসব হিন্দু ধর্মালম্বীদের নিজস্ব ধর্মীয় উৎসব। এ উৎসবে রাস্তা ঘাটে মুসলিম নারী পুরুষসহ হিজাবদারী নারীদের জোর করে রঙ মাখানো হয়েছে। এটা ধর্মীয় উৎসবের নামে ধর্মীয় সন্ত্রাস। মুসলমানরা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রেখে মুসলমানদের ধর্মীয় কোনো উৎসবে অন্য সম্প্রদায়কে শরীক করে না এবং করার কোনো বিধানও নেই। হোলি উৎসবের নামে যারা রঙ মাখিয়ে তাদের সাংস্কৃতির সাথে এদেশের মুসলিম তরুণ-তরুণীদেরকে বেলেল্লাপনা ও বেহায়াপনায় বাধ্য করে তারা এদেশকে হিন্দুয়ানী রাষ্ট্রে পরিণত করার চক্রান্ত করছে। ৯৫ ভাগ মুসলমানের দেশ বাংলাদেশে তা কোনো ভাবেই সহ্য করা যায় না। যারা জোর করে মুসলিম নারীদের রঙ মাখিয়েছে তাদের সনাক্ত করে উপযুক্ত শাস্তি দিতে হবে। যাতে করে এধরণের অরুচিপূর্ণ কর্মকাণ্ড পরিচালনা করার সাহস না করতে পারে।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম মহাসচিব- অধ্যাপক এটিএম হেমায়েত উদ্দিন ও মাওলানা গাজী আতাউর রহমান, সহকারি মহাসচিব মাওলানা আব্দুল কাদের, দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ুম, শায়খুল হাদীস মাওলানা মকবুল হোসাইন, উত্তর সভাপতি অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, মাওলানা মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মাওলানা আতাউর রহমান আরেফী, আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, মুফতি কেফায়েতুল্লাহ কাশফী, মু. বরকত উল্লাহ লতিফ, এ্যাডভোকেট একেএম এরফান খান, আলহাজ্ব কে জি মাওলা প্রমুখ।