রবিবার, ৫ জুলাই, ২০১৫

রমজানের শিক্ষা না থাকায় অপরাজনীতির চর্চা চলছে; শান্তির জন্য তাকওয়াপূর্ণ সমাজ অপরিহার্য -পীর সাহেব চরমোনাই


ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই’র আমন্ত্রণে রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, শিক্ষাবিদ, উলামা-মাশায়েখ ও ব্যবসায়ীদের সম্মানে রাজধানীর কাকরাইলস্থ রাজমনি ঈসা খাঁ’র ভিআইপি হলে ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। মাহফিলে আগত জাতীয় নেতৃবৃন্দের সাথে পীর সাহেব চরমোনাই কুশল বিনিময় করেন। পীর সাহেব চরমোনাই তাঁর শুভেচ্ছা বক্তব্যে বলেছেন, দেশ, ইসলাম ও মানবতা আজ শান্তির জন্য হাহাকার করছে। পবিত্র রমজান মাস আমাদেরকে তাকওয়ার মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ সমাজ গঠনের শিক্ষাই দেয়। রমজান মাসের রোযা যেমনি আমাদেরকে ব্যক্তি জীবনে সংযম ও তাকওয়া অর্জনের শিক্ষা দেয় তেমনি সমাজ জীবনে এর চর্চা করতে পারলে জাগতিক সব সমস্যারও সমাধান সম্ভব। তিনি বলেন, কুরআনকে শুধু পড়লেই চলবে না, এর অর্থ বুঝে বাস্তব জীবনে এর নির্দেশনাকে কাজে লাগাতে হবে।
পীর সাহেব বলেন, দেশে অপরাজনীতি চলছে। রাজনীতির নামে ধান্ধাবাজি, দলবাজী ও ক্ষমতালোভীরা রমজানের শিক্ষাকে ম্লান করে দিচ্ছে। রমজানের শিক্ষা না থাকায় ক্ষমতালোভীরা ক্ষমতাকেন্দ্রিক কাজ করছে। এমনকি এতে কতিপয় আলেমরাও শায় দিচ্ছে, শুধু রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য। এই অপরাজনীতির অবসান হওয়া প্রয়োজন। ক্ষমতার জন্য নাস্তিক-মুরতাদদের আস্ফালন চলছে। আমাদের প্রিয় নবী (সা.), পবিত্র হজ্ব নিয়ে কটুক্তি করার পরও লতিফ সিদ্দিকীকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। এতে করে সরকারই জনগণকে ঈমান রক্ষার পরিস্থিতিতে ফেলেছে। আর এর দায়দায়িত্ব সরকারের কাধেই যাবে। তিনি মুরতাদ লতিফসহ ধর্ম অবমাননাকারীদের সর্বোচ্চ শাস্তির আইন পাশের দাবি জানান। লতিফ সিদ্দিকীর ক্ষমার কোনো সুযোগ ইসলামে নেই। তাকে সর্বোচ্চ শাস্তি পেতেই হবে।
১৬ রমাজান শনিবার (৪ জুলাই) বিকাল ৫টায় রাজধানীর কাকরাইলস্থ রাজমনি ঈসা খাঁ’র ভিআইপি হলে দেশের বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, শিক্ষাবিদ, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, শীর্ষস্থানীয় ওলামা-মাশায়েখ ও সূধীবৃন্দের সাথে শুভেচ্ছা বক্তব্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর আমীর মুফতী সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম পীর সাহেব চরমোনাই এসব কথা বলেন।
বক্তব্য রাখেন সংগঠনের প্রেসিডিয়াস সদস্য প্রিন্সিপাল মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল মাদানী, মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, নগর সভাপতি অধ্যাপক মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দিন, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাবেক চীফ হুইপ শহিদুল হক জামাল, সাবেক এমপি মেজর অব. আখতারুজ্জামান, সাবেক এমপি মু. আব্দুল্লাহ, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের নেতা মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, দৈনিক নয়া দিগন্ত সম্পাদক আলমগীর মহিউদ্দিন, দৈনিক ইনকিলাবের সহকারী সম্পাদক মাওলানা উবায়দুর রহমান খান নদভী, বায়তুল মোকাররম মসজিদের সিনিয়র ইমাম মাওলানা মুহিব্বুল্লাহিল বাকী নদভী, সাংবাদিক নেতা সৈয়দ আবদাল আহমদ।
সংগঠনের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা গাজী আতাউর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ইফতার মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মুসলিম লীগের আতিকুর রহমান, খেলাফত নেতা মাওলানা আবু তাহের, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা নেয়ামতুল্লাহ আল-ফরিদী, সহকারী মহাসচিব মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, আলহাজ্ব আমিনুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক কে এম আতিকুর রহমান, প্রচার সম্পাদক মাওলানা আহমদ আবদুল কাইয়ূম, ফরিদাবাদ মাদরাসা প্রধান মুফতী মাওলানা মুতিউর রহমান, মুফতী বশিরউল্লাহ, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মাওলানা দেলওয়ার হোসাইন সাকী, আলহাজ্ব হারুনুর রশীদ, ইঞ্জিনিয়ার শরীফুল ইসলাম তালুকদার, মুফতী হেমায়েতুল্লাহ, মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, এ্যাডভোকেট আব্দুল মতিন, ইসলামী আইনজীবী পরিষদ নেতা এ্যাডভোকেট শেখ আতিয়ার রহমান, এ্যাডভোকেট আব্দুল বাসেত, এম বরকতুল্লাহ লতীফ, মুফতী কেফায়েতুল্লাহ কাশফী, আলহাজ্ব আব্দুর রহমান, এশিয়ান ইউনিভার্সিটির প্রফেসর মুহিব্বুল্লাহ, তানজীমুল উম্মাহর চেয়ারম্যান হাবীবুল্লাহ মু. ইকবাল প্রমুখ।
প্রেস বিজ্ঞপ্তি
তারিখ: ০৪/০৭/২০১৫ ইং