বৃহস্পতিবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

নোয়াখালীতে ইশা ছাত্র আন্দোলনের কর্মীসভা অনুষ্ঠিত



ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নোয়াখালী জেলা সভাপতি হাফেজ মাও. নজীর আহমাদ বলেন, ইসলামই মানবতার মুক্তির একমাত্রগ্যারান্টি। অথচ ৯২ ভাগ মুসলমানের এদেশে প্রায় সকল সেক্টরে ইসলাম আজ লাঞ্চিত এবং চরমভাবে উপেক্ষিত। ইসলামের কথা বললেই এক শ্রেণির ভাইদের গায়ে জ্বালা শুরু হয়ে যায়। আরেক শ্রেণি ধর্মীয় অনুভূতির বুলি আওড়ালেও ইসলামী শাসন প্রতিষ্ঠায় তাদের ভূমিকা সম্পূর্ণ বিপরীত। দেশে আজ চরম সংকট বিরাজ করছে। মানুষের মৌলিক অধিকার হরণ করা হচ্ছে ষড়যন্ত্রের জাল বিস্তার করে বর্তমান সরকার ক্ষমতাকে পাকা পোক্ত করে ইতোমধ্যেই মানবতার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে।

আজ ২৯ ডিসেম্বর'১৬ মাইজদীস্থ বি.আর.ডি.বি মিলনায়তনে ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন নোওয়াখালীর দক্ষিণ জেলা কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। উক্ত সম্মেলনে জেলা সভাপতি আল-আমিন এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মানজুর এলাহী-এর সঞ্চালনায় আরও বক্তব্য রাখেন মাও. আবদুর রহীম, মাও. কাউছার আহমাদ মাও. শাহাদাত হোসাইন, আবদুল মুকিত সহ প্রমুখ।



বিশেষ অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, পৃথিবীতে যতগুলো বিপ্লব সংঘটিত হয়েছে, তার পিছনে অগ্রণী ভূমিকা পালনকরেছে ছাত্র ও যুব সমাজ।আমাদের বাংলাদেশের ইতিহাসও তার ব্যতিক্রম নয়। ৫২ এর ভাষা আন্দোলন, ৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান ও ৭১ এর স্বাধীনতা সংগ্রামসহসকল আন্দোলন-সংগ্রামে ছাত্র ও যুব সমাজেরভূমিকা ছিল উল্লেখযোগ্য। তাই ছাত্র ও যুব সমাজকে আরেকটি বিপ্লবের জন্য সংগ্রাম করতে হবে। খোদাদ্রোহী জালিম শক্তির বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে তাদেরকে সূচনা করতে হবে নতুন বিপ্লবের। আর সেটি হবে ইসলামী বিপ্লব। তারাই হবে ইসলাম, দেশও মানবতার কাণ্ডারী। ইসলামী বিপ্লব ত্বরান্বিত করতে ইশা ছাত্রআন্দোলনকে অগ্রনী ভূমিকা পালন করতে হবে।