বৃহস্পতিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭

চরমোনাই'র বার্ষিক মাহফিল শুরু আগামীকাল

আইএবি নিউজ: বরিশালের কীর্তনখোলা নদীর তীরে চরমোনাই'র ৩দিন ব্যাপী বার্ষিক ওয়াজ-মাহফিল আগামীকাল শুক্রবার (২৪ ফেব্রুয়ারী) শুরু হচ্ছে।
সোমবার সকাল ৯টায় আখেরী মুনাজাতের মাধ্যমে মাহফিলের সমাপ্তি হবে। বিশ্ব ইজতেমার পর চরমোনাই মাহফিলকে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম ইসলামী মহাসমাবেশ হিসেবে গণ্য করা হয়।

শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর পীর সাহেব চরমোনাই মাওলানা মুফতি সৈয়দ রেজাউল করীম উদ্বোধনী বয়ানের মাধ্যমে মাহফিলের সূচনা করবেন। ৩দিনে মোট ৭টি বয়ান হবে। তার মধ্যে ৫টি বয়ান করবেন আমীরুল মুজাহিদীন হযরত পীর সাহেব চরমোনাই ও ২টি বয়ান করবেন নায়েবে আমীরুল মুজাহিদীন মাওলানা সৈয়দ ফয়জুল করীম।

এছাড়াও মাহফিলে আগত বিদেশী উলামায় কেরামগণও মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বয়ান করবেন। তাদের মধ্যে উম্মুল মাদারিস দারুল উলুম দেওবন্দের বর্তমান নায়েবে মুহতামিম ও সিনিয়র মুহাদ্দিস হযরত আল্লামা শায়খ আবদুল খালেক সাম্ভলী সাহেব, শাইখুল আরব ওয়াল আজম হযরত হুসাইন আহমদ মাদানী রহিমাহুল্লাহ-এর খাস শাগরেদ, হযরতুল আল্লাম ইবরাহিম বলিয়াভি রহিমাহুল্লাহ-এর বিশেষ খলিফা, দীর্ঘ দিনের শায়খে মুসলিম শরিফ, দারুল উলুম দেওবন্দের বর্তমান শায়খে সানী, হযরতুল আল্লাম শায়খ কমরুদ্দিন আহমদ সাহেব এবং দেওবন্দের সিনিয়র মুহাদ্দিস, শায়খুল মা’কুলাত হযরতুল আল্লাম মুজিবুল্লাহ কাসেমি সাহেব বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। উদ্বাধনী বয়ানের পর প্রত্যেক দিন ফজর ও মাগরিবের নামাজের পর মুসুল্লীদের উদ্যেশ্যে বয়ান করবেন পীর সাহেব চরমোনাই। এছাড়া শুক্রবার জুম্মার আগে মাহফিল মাঠে বাংলাদেশ কুরআন শিক্ষা বোর্ডের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

মাহফিলের দ্বিতীয় দিন শনিবার বেলা ১১টায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের উদ্যোগে ওলামা-মাশায়েখ সম্মেলন এবং তৃতীয় দিন রোববার সকাল ১০টায় ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে।

এদিকে তিনদিন আগে থেকে চরমোনাই মুরীদানেরা মাহফিলে আসতে শুরু করেছেন। মুসুল্লীদের জন্য মোট ৪টি মাঠে প্রায় ১০ বর্গকিলোমিটার প্যান্ডেল করা হয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবারের মধ্যে সবগুলো মাঠ মুসুল্লীতে পরিপূর্ন হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন মাহফিলের আয়োজকরা। মাহফিলে স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে কাজ করছেন ৫ সহাস্রাধিক মুজাহিদ।