শুক্রবার, ২৪ মার্চ, ২০১৭

দ্বীন প্রতিষ্ঠায় কর্মীদের আনুগত্যের দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে: মুফতী ফয়জুল করীম

আইএবি নিউজ: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর সিনিয়র নায়েবে আমীর মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ ফয়জুল করীম বলেছেন, দ্বীন প্রতিষ্ঠিত না থাকায় সর্বত্র অশান্তি বিরাজ করছে। সন্ত্রাস, দুর্নীতি মহামারি আকার ধারণ করেছে। নৈতিকতা বিবর্জিত শিক্ষা ব্যবস্থার কারণে মানুষ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে উপনিত। অশান্তি থেকে মূক্তি পেতে সকলকে ইসলাম প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে ফিরে আসতে হবে। দ্বীন প্রতিষ্ঠায় কর্মীদের আনুগত্যের দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে হবে।

তিনি বলেন, ৯২ ভাগ মুসলমানের দেশে আজ ইসলামের অবস্থা বড়ই নাজুক। ইসলাম না থাকায় সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় মূর্তির সংস্কৃতি চালু করে মানুষকে শিরকে লিপ্ত করাতে চাচ্ছে। মূর্তির সংস্কৃৃতি থেকে সরকারকে ফিরে আসতে হবে।

শুক্রবার (২৪ মার্চ) সকাল ১০টা থেকে পুরানা পল্টনস্থ আইএবি মিলনায়তনে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা জেলা শাখার কর্মী তারবিয়াতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

সংগঠনের ঢাকা জেলা সভাপতি আলহাজ্ব সৈয়দ আলী মোস্তফার সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারী আলহাজ্ব শাহাদাত হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত কর্মী তারবিয়াতে প্রধান আলোচক ছিলেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা ইমতিয়াজ আলম, বিশেষ আলোচক ছিলেন দক্ষিণ সেক্রেটারী মাওলানা এবিএম জাকারিয়া। তারবিয়াতে অন্যান্যের মধ্যে আলোচনা করেন জেলা সহ-সভাপতি আলহাজ্ব হানিফ মিয়া, আলহাজ্ব হাফেজ জয়নুল আবেদীন, আব্দুর রাজ্জাক বেপারী, জয়েণ্ট সেক্রেটারী অধ্যাপক ডা. কামরুজ্জামান, সাংগঠনিক সম্পাদক, মুহা. হাসমত আলী, মাওলানা নূর হোসাইন, মুফতী আব্দুল করীম, মাওলানা ইলিয়াস হোসাইন, মাওলানা জহিরুল ইসলাম, মুফতী ইজহারুল ইসলাম, হাজী আব্দুল মালেক, ডা. দেলোয়ার হোসেন, টি এম মাহফুজুর রহমান প্রমুখ।

মুফতী ফয়জুল করীম বলেন, মূর্তির সংস্কৃতি ইসলামবিরোধী। যারা মূর্তির সংস্কৃতি লালন করে তারা ঈমানদার হতে পারে না। অবিলম্বে এই মূর্তি সরাতে হবে। মূর্তির বিরুদ্ধে গড়ে উঠা আন্দোলনের জনমত সরকার পতনের আন্দোলনে রূপ নিতে পারে। তাই মূর্তি অপসারণ করলে সরকারেরই কল্যাণ হবে। মূর্তি না সরালে যে কোন মূল্যে ২১ এপ্রিল রাজধানী ঢাকায় জাতীয় মহাসমাবেশ সফলের মাধ্যমে ঈমানদার জনতা গ্রিক মূর্তিসহ সকল মূর্তি ভেঙ্গে দিতে বাধ্য হবে।