বুধবার, ১২ এপ্রিল, ২০১৭

হাতপাখার পথসভায় আওয়ামী সন্ত্রাসীদের হামলা

লতাচাপলী (পটুয়াখালী) সংবাদদাতা : গতকাল ১২ এপ্রিল'১৭ ৬নং ওয়ার্ড (লক্ষ্মীবাজার) -এ ৭নং লতাচাপলী ইউনিয়ন নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জনাব মোসলেম মুসুল্লী মুছার হাতপাখার প্রতীকের পথসভায় আওয়ামীলীগের স্থানীয় ওয়ার্ড সভাপতি আব্দুর রশীদের নেতৃত্বে কয়েকজন আওয়ামী সন্ত্রাসী অতর্কিত হামলা চালানো হয়েছে মর্মে সংবাদ পাওয়া গেছে। আমাদের সংবাদদাতা বলেন, এ সময় হাতপাখার কর্মীরা শক্ত হাতে প্রতিরোধ করলে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। শোনা যায়, পরবর্তীতে হাতপাখার কর্মীদের উপর হামলা চালাতে লক্ষ্মীবাজারে নৌকার সমর্থকরা জড় হয়, কিন্তু হাতপাখার জোয়ার দেখে তারা পিছু হটে।

হাতপাখার সমর্থকরা বলেন, আমরা যে কোনো মূল্যে সন্ত্রাসীদের প্রতিহত করবো এবং আমাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবো ইনশাআল্লাহ।

হাতপাখার প্রার্থী বলেন, প্রয়োজনে আমরা লাশ হবো, তবুও এলাকায় সুষ্ঠু নির্বাচন করতে বাধ্য করবো ইনশাআল্লাহ।

হাতপাখা প্রার্থীর মেজো ছেলে, নন্দিত ওয়ায়েজ, মুফতী হাবিবুর রহমান মিছবাহ প্রশাসনকে বলেন, পুলিশের শ্লোগান হলো "পুলিশই জনগন জনগণই পুলিশ"। অতএব, আপনারা জনগণের পক্ষে কাজ করুন, তাতে আমাদের সহযোগিতা থাকবে ইনশাআল্লাহ। কিন্তু কোনো পক্ষ যদি হামলা করে, সন্ত্রাসী কর্মে লিপ্ত হয়, আর তাতে প্রশাসন নিরব ভূমিকা পালন করে, তাহলে হাতপাখার কর্মীরা কঠোর হস্তে দমন করতে বাধ্য হবে। তাতে লতাচাপলীতে যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে তার দায়ভার প্রশাসনকেই নিতে হবে।

এদিকে নির্বাচনী এলাকার প্রতিটি ঘরে ঘরে গিয়ে আওয়ামী সন্ত্রাসী কর্তৃক ভোটারদের হুমকি-ধমকি ও স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন কর্তৃক হাতপাখার পথসভায় বাধায় দেয়ায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, হাতপাখা প্রার্থীর তিন সুযোগ্য সন্তান ও নন্দিত ওয়াজে মাও. হাফিজুর রহমান সিদ্দীক, মুফতী হাবিবুর রহমান মিসবাহ ও দারুল উলূম দেওবন্দে অধ্যায়নরত মাও. মাহফুজুর রহমান জাবের পিতার নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নেন।